১৩০ হুতি বিদ্রোহী হত্যার দাবি সৌদি সামরিক জোটের | আন্তর্জাতিক

১৩০ হুতি বিদ্রোহী হত্যার দাবি সৌদি সামরিক জোটের | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

ইয়েমেনের মারিব শহর ও আশপাশে গত ২৪ ঘণ্টায় সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ও সমর্থিত সরকারি বাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ে ১৩০ জনের বেশি হুতি বিদ্রোহী নিহত হয়েছে।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এসপিএ জানিয়েছে, মারিব ও আল বায়েদা প্রদেশে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে ১৬টি সাঁজোয়া যান ধ্বংস করা হয়েছে।

সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ইয়েমেনের আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত সরকারকে সমর্থন করে। জোটটি ইরান সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে প্রায় প্রতিদিনের হামলার খবর জানিয়েছে। প্রতিটি হামলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির দাবি করেছে।

বিদ্রোহীরা কয়েক মাস ধরে মারিবের বিরুদ্ধে আক্রমণ চালিয়েছে, তারা খুব কমই ক্ষতির বিষয়ে মন্তব্য করে। বার্তাসংস্থা এএফপির হিসাবে, অক্টোবর থেকে বিমান হামলায় সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে।

আরও পড়ুন: অবস্থা বুঝে টিকা রপ্তানি শুরু করল ভারত

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে হুতি ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে লড়াই তীব্র রূপ নিয়েছে। কিছুদিন আগে জাতিসংঘ জানিয়েছে, মারিবে সেপ্টেম্বরের লড়াইয়ে ১০ হাজার লোক ঘরছাড়া হয়েছে।

ইয়েমেনের আন্তর্জাতিক সমর্থিত সরকারের সর্বশেষ ঘাঁটি মারিবের সংঘাতে মানবিক বিপর্যয় আরও চরম রূপ নিয়েছে। গেল মাস থেকে অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ নিতে অভিযান শুরু করেছে হুতিরা।

শিয়া হুতিদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সৌদি বাহিনীকে বিমান হামলার ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে। সাত বছরের যুদ্ধে ইয়েমেনে মানবিক সংকট দেখা দিয়েছে। ২০১৪ সালে মারিবের ১২০ কিলোমিটার পশ্চিমে রাজধানী সানার নিয়ন্ত্রণ নেয় হুতিরা। এরপর থেকে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট বিমান হামলা শুরু করেছে।

এতে হাজার হাজার ইয়েমেনি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। বাস্তুচ্যুত হয়েছেন কয়েক লাখ। দেশটি এখন দুর্ভিক্ষের কিনারে গিয়ে ঠেকেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *