সিরিয়ার সঙ্গে পুনরায় সম্পর্ক জোরদার আমিরাতের | আন্তর্জাতিক

সিরিয়ার সঙ্গে পুনরায় সম্পর্ক জোরদার আমিরাতের | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

সিরিয়ার সঙ্গে পুনরায় সম্পর্ক জোরদারের ঘোষণা দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ২০১১ সালে দেশটিতে গৃহযুদ্ধ শুরুর পর প্রথমবারের মতো আরব আমিরাতের কোনো শীর্ষ নেতা সিরিয়া সফরে গেলেন।

মঙ্গলবারের সিরীয় প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের সঙ্গে বৈঠক করেন আরব আমিরাতর পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আল নাহিয়ান। একই দিন সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় কুর্দি-অধ্যুষিত এলাকায় ড্রোন হামলা চালিয়েছে প্রতিবেশী দেশ তুরস্ক।

২০১১ সালে আরব বসন্তের ঢেউ আছড়ে পড়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সিরিয়ায়। সরকারবিরোধী বিক্ষোভ থেকে ছড়িয়ে পড়ে সহিংসতায়। শুরু হয় গৃহযুদ্ধ। চাপের মুখে পড়ে আসাদ সরকার। আঞ্চলিক জোট আরব লিগ থেকে বাদ দেওয়া হয় সিরিয়াকে।

গৃহযুদ্ধের ১০ বছর পর ধীরে ধীরে আবারও সিরিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়ন করছে প্রতিবেশী দেশগুলো। সিরিয়া যুদ্ধ শুরুর পর প্রথমবারের মতো মঙ্গলবার দামেস্ক সফরে যান সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান সিরীয় প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ। রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন তারা।

আরও পড়ুন: শরণার্থীদের সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে বেলারুশ, অভিযোগ ইইউর

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, পুনরায় সম্পর্ক উন্নয়নে একমত হয়েছেন দুই দেশের নেতারা। সিরিয়া পুনর্গঠন ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে আবুধাবি বিশাল অঙ্কের বিনিয়োগ করতে আগ্রহী বলেও খবরে উল্লেখ করা হয়।

আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরের মধ্যেই সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় কুর্দি-অধ্যুষিত কামিশলি শহরে ড্রোন হামলা চালিয়েছে তুরস্ক। এতে বাড়িঘরের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পাশাপাশি এক পরিবারের বেশ কয়েক সদস্য নিহত হয়েছেন। নিহতরা সবাই স্থানীয় কুর্দি প্রশাসনের সদস্য বলে জানা গেছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *