লাদাখ সীমান্তে ব্রিজ নির্মাণ, চীন-ভারত উত্তেজনা | আন্তর্জাতিক

লাদাখ সীমান্তে ব্রিজ নির্মাণ, চীন-ভারত উত্তেজনা | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

লাদাখ সীমান্তের কাছে ব্রিজ নির্মাণকে কেন্দ্র করে আবারও ভারত ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। সম্প্রতি পূর্ব লাদাখে প্যাংগং লেকের ওপর ব্রিজ নির্মাণের একটি স্যাটেলাইটের ছবি প্রকাশ করা হয়। এতে চীনা সেনাবাহিনীকে ব্রিজ নির্মাণ করতে দেখা যায়। ভারতের কূটনৈতিক মহল বলছে, নতুন এই ব্রিজ লেকের দুই পাড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি চীনের প্রভাব বিস্তার করবে।

গত পহেলা জানুয়ারি একটি ভিডিও প্রকাশ করে চীনের রেড আর্মি। যেখানে লাদাখের গালওয়ান ভ্যালিতে পতাকা উত্তোলন করতে দেখা যায় চীনা সেনাদের। রীতিমত ভাইরাল হয়ে যায় ঐ ভিডিওটি। এ নিয়ে সরব হয়ে উঠে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই এবার নতুন খবর সামনে এলো।

 

পূর্ব লাদাখের প্যাংগং লেকের ওপর সেতু নির্মাণের ছবি প্রকাশ করেছেন ভারতের কূটনীতি বিশেষজ্ঞ ডেমিয়েন সাইমন। স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবিতে দেখা দেয়, চীনা সেনাদের নির্মাণ করা এই সেতু এরইমধ্যে সম্পূর্ণ হওয়ার পথে। সেতুটি সম্পূর্ণ হলে প্যাংগং লেকের উত্তর এবং দক্ষিণ তীরকে সংযুক্ত করবে। নতুন এই ব্রিজ লেকের দুই পাড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থার পাশাপাশি চীনের প্রভাব বিস্তারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা।

 

আরও পড়ুন: ওমিক্রনের নতুন আরও দুই লক্ষণ শনাক্ত
 

তারা বলছেন, নিজের এলাকাতেই চীন ওই সেতু নির্মাণ করছে বলে জানা গেলেও প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা ঐ সেতুর দূরত্ব মাত্র কয়েক মিটার। সেতু নির্মাণ সম্পূর্ণ হলে ভারতের বিরুদ্ধে সেনা এবং যুদ্ধসরঞ্জাম জড়ো করতে চীন আরও সুবিধাজনক জায়গায় পৌঁছে যাবে। একইসঙ্গে প্যাংগংয়ের দুই তীরেই তাদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার পথ আরও প্রশস্ত হবে।

 

২০২০ সাল থেকে পূর্ব লাদাখে ভারত এবং চীনের ৫০ হাজার করে সেনা মোতায়েন রয়েছে। দেপসাং, দেমচক সহ একাধিক জায়গায় কার্যত মুখোমুখি অবস্থান করছে দু’পক্ষ। সেনা তুলে নিতে দফায় দফায় আলোচনাও হয়েছে দুই দেশের মধ্যে। কিন্তু তাতেও বরফ গলেনি। বরং বিগত কয়েক মাস ধরে অরুণাচলপ্রদেশেও চীনা আগ্রাসন দেখা গিয়েছে। সেখানের বিস্তীর্ণ এলাকা দখল করে একাধিক গ্রাম গড়ে তোলা হয়েছে বলে চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ নয়াদিল্লির।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *