লঞ্চে আগুন: হেলিকপ্টারে ২ জনকে ঢাকায় আনার পর বার্ন ইউনিটে ভর্তি | বাংলাদেশ

লঞ্চে আগুন: হেলিকপ্টারে ২ জনকে ঢাকায় আনার পর বার্ন ইউনিটে ভর্তি | বাংলাদেশ

<![CDATA[

ঢাকা থেকে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ নামে একটি লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গুরুতর আহত দুই রোগীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য র‌্যাবের হেলিকপ্টারে ঢাকায় এনে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় র‌্যাবের হেলিকপ্টারে করে মারুফা আক্তার ও সেলিম রেজাকে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। তেজগাঁও বিমানবন্দরে নামার পর তাদের দুটি আলাদা অ্যাম্বুলেন্সে করে বার্ন ইনস্টিটিউটে আনা হয়। 

এ নিয়ে বার্ন ইনস্টিটিউটে লঞ্চের আগুনে গুরুতর দগ্ধ সাত জন ভর্তি রয়েছেন। আর একজনের পোড়া কম হওয়ায় তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এর আগে, ঢাকা থেকে র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) অতিরিক্ত আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ-আল মামুন ও র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বরিশাল মেডিকেল কলেজে পৌঁছার পর সেখানে আহত রোগীদের সঙ্গে কথা বলেন র‌্যাব মহাপরিচালক। এরপরই আহতদের মধ্যে গুরুতর দুই রোগীকে র‌্যাবের হেলিকপ্টারে ঢাকায় পাঠানো হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত তিনটার দিকে ঝালকাঠি লঞ্চ টার্মিনালের ঠিক আগে গাবখান সেতুর কাছে সুগন্ধা নদীতে এমভি অভিযান-১০ নামক লঞ্চের ইঞ্জিন থেকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এরপর সেই আগুন পর্যায়ক্রমে ছড়িয়ে পড়ে পুরো লঞ্চে। খবর পেয়ে বরিশাল, পিরোজপুর, বরগুনা ও ঝালকাঠির কোস্ট গার্ড ও ফায়ার সার্ভিস উদ্ধারকাজ শুরু করে।

পরে, দগ্ধদের উদ্ধার করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সেখানে তাদের চিকিৎসা চলছে।

আরও পড়ুন: লঞ্চে অগ্নিকাণ্ড: আহতদের দ্রুত চিকিৎসার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

এদিকে লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। এরমধ্যে লঞ্চ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ২৭টি মরদেহ। তিনটি মরদেহ নদীতে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া গেছে। পরবর্তীতে আরও ১০ জনের মরদেহ উদ্ধার করার খবর জানায় দমকল কর্মীরা। দগ্ধদের মধ্যে ৭২ জনকে বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের আশপাশের বিভিন্ন হাসপাতালে নেওয়া হয়।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধদের চিকিৎসার জন্য ইতোমধ্যে ছয় সদস্যের একটি মেডিকেল টিম বরিশালের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। শুক্রবার (২৪ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ঢাকা ছাড়েন তারা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের জরুরি বিভাগের আবাসিক ডা. এসএম আইউব হোসেন। তিনি জানান, ছয়জন চিকিৎকের একটি দল বরিশালের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন।

ছয় চিকিৎসক হচ্ছেন- জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ডা. মাশরুর রহমান আবির ও ডা. নুর আলম, রেজিস্টার ডা. মোরশেদ কামাল, ডা. মৃদুল কান্তি সাহা এবং ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের ডা. ইশতিয়াক ও ডা. মুনতাসির।

বরিশাল মেডিকেলে ভর্তি দগ্ধ রোগীদের চিকিৎসার জন্য এ মেডিকেল টিম পাঠানো হয়েছে বলে জানান আইউব হোসেন।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *