লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে আমনের ফলন | বাংলাদেশ

লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে আমনের ফলন | বাংলাদেশ

<![CDATA[

আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় শস্য ভান্ডারখ্যাত শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে চলতি আমন আবাদে সোনালি ধানে মাঠ ভরে গেছে। এতে বাম্পার ফলন হবে বলে আশা করছেন কৃষকেরা। তাই এ বছর ধান উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে বলে কৃষি বিভাগ জানিয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, নালিতাবাড়ী উপজেলায় চলতি আমন মৌসুমে ২২ হাজার ৮২০ হেক্টর জমিতে আমন আবাদ করা হয়েছে। ফলন লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লাখ ৫৩ হাজার ৪১৪ মেট্রিক টন চাল। এরমধ্যে ৪ হাজার ৩২০ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড, ৯ হাজার ১৫০ হেক্টর জমিতে উফশী ও ৯ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে স্থানীয় জাতের আমন ধান লাগানো হয়েছে।

উপজেলার পলাশীকুড়া গ্রামের কৃষক আতাউর রহমান জানান, তিনি এবারের আমন আবাদে ২৫ শতাংশ জমিতে মসুরী পাইজাম ও ২৫ শতাংশ জমিতে ব্রি-ধান ৪৯ জাতের ধান লাগিয়েছেন। এখন পর্যন্ত ফসল ভালো দেখা যাচ্ছে। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন যদি ধানের বাজার দর ভাল থাকে তাহলে তিনি খরচ বাদে লাভবান হবেন।

আন্ধারুপাড়া গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমান হাবিল জানান, তিনি ১ একর ৫০ শতাংশ জমিতে স্থানীয় স্বর্ণলতা ও ইন্ডিয়ান পাইজাম জাতের ধান লাগিয়েছেন। আবাদ খুব ভালো হয়েছে। ধান কাটার আগ মুহুর্ত পর্যন্ত যদি কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা না দেয় তাহলে বাম্পার ফলনের সম্ভবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন : গাজীপুরে আখের বাম্পার ফলন ও দামে খুশি কৃষকরা

এদিকে, বোনারপাড়া গ্রামের অপর কৃষক সাইদুল ইসলাম বলেন, আমি ২ একর জমিতে হাইব্রিড ধানী গোল্ড জাতের ধান লাগিয়ে ছিলাম। ইতোমধ্যে তা কাটতে শুরু করেছি। এছাড়া উপজেলার বেশ কিছু উঁচু এলাকায় হাইব্রিড ধানী গোল্ড ও বিনা-৭ জাতের ধান কাটা শুরু হয়েছে। এসব ধানে ভালো ফলন হয়েছে।

নালিতাবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলমগীর কবীর বলেন, নালিতাবাড়ীতে চলতি আমন আবাদে পোকা মাকড়ের আক্রমণ নেই। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আবাদ ভালো হয়েছে। শেষ পর্যন্ত কোনো রকম প্রাকৃতিক র্দুযোগ দেখা না দিলে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *