ব্রিটিশ পার্লামেন্টে চীনা গোয়েন্দার হানা | আন্তর্জাতিক

ব্রিটিশ পার্লামেন্টে চীনা গোয়েন্দার হানা | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

চীনা কমিউনিস্ট পার্টির হয়ে কাজ করা এক সন্দেহভাজন নারী অন্যায়ভাবে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্যদের ওপর প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করেছেন। যুক্তরাজ্যের অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থা এমন দাবি করেছে।

হাউস অব কমনসের স্পিকার লিন্ডসে হোলির কার্যালয় জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সদস্যদের জন্য একটি মেমো ইস্যু করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, এমআই৫-এর তদন্তে পাওয়া গেছে, চাইনিজ কমিউনিস্ট পার্টির হয়ে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ তৎপরতায় জড়িত ওই নারী।

ব্রিটিশ মেমো বলছে, ওই চীনা নাগরিকের অবস্থান অজ্ঞাত। তিনি আইনপ্রণেতাদের সঙ্গে বিভিন্ন কার্যক্রমে জড়িত। হংকং ও চীনভিত্তিক বিদেশি নাগরিকদের পক্ষে কাজ করতে পার্লামেন্ট সদস্যদের অনুপ্রাণিত ও তাদের আর্থিক সুবিধাও দিয়েছেন।

তবে এ নিয়ে চীন সরকারের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এমআই৫ নিজেও পার্লামেন্ট সদস্যদের সতর্কবার্তা দিয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ওই নারীর সঙ্গে যারা যোগাযোগ করেছেন, তাদের উচিত তার সংযুক্ততা নিয়ে সতর্ক হওয়া। এতে চীনা কমিউনিস্ট পার্টির অগ্রযাত্রাকে সুযোগ করে দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন: চীন-রাশিয়া সম্পর্ক কী টিকবে?

যুক্তরাজ্যের ক্ষমতাসীন রক্ষণশীল দলের সাবেক নেতা ইয়ান ডানকান স্মিথ বলেন, এটি অবশ্যই উদ্বেগের বিষয়। তিনি ওই নারীকে চীনে পাঠিয়ে দেওয়ার দাবি করেন। আর এ নিয়ে হাউস অব কমন্সে একটি বিবৃতি দিতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন।

উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় জিনজিয়াং অঞ্চলে মনবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় চীনের বিরুদ্ধে সরব ডানকান স্মিথ। যে কারণে তার বিরুদ্ধে চীন সরকারের নিষেধাজ্ঞাও রয়েছে।

রক্ষণশীল দলের আইনপ্রণেতা তোবিয়াস এলউডও হাউস অব কমনসে বিবৃতিতে সরকারের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, চীনের কাছ থেকে আমরা এ রকম ক্ষতিকর হস্তক্ষেপই প্রত্যাশা করছিলাম। কিন্তু তারা সরাসরি পার্লামেন্টকে নিশানা করেছেন। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত সরকারের।

আরও পড়ুন: তাইওয়ান-চীন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের গভীর উদ্বেগ

 

 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *