বেগমগঞ্জে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ | বাংলাদেশ

বেগমগঞ্জে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ | বাংলাদেশ

<![CDATA[

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নে সদ্য শেষ হওয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে অন্তত ৬ জন আহত হয়েছে। এ সময় একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় উভয়পক্ষ একে অন্যকে দায়ী করছেন।

শুক্রবার (১২ নভেম্বর) সন্ধ্যায় পূর্ব আবদুল্যাহপুর গ্রামে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আহতরা হচ্ছেন-আজাদ (৪০), জামাল উদ্দিন (৪২), আব্দুল্যাহ আল মামুন রাব্বী (১৬) ও নিজাম উদ্দিনসহ (৩৮) ৬ জন। আহতদের মধ্যে কয়েকজনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের ন্যায় কুতুবপুরেও ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

গত ১১ নভেম্বর সন্ধ্যায় ভোট গণনা শেষে মেম্বার পদে ফুটবল প্রতীক নিয়ে নুরুল হুদা আলমগীর বেসরকারিভাবে জয়ী হয়। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিল মোরগ প্রতীকের নূর মোহাম্মদ মানিক। ফলাফল ঘোষণার পর থেকে উভয়পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এ ঘটনার জের ধরে শুক্রবার জুমার নামাজের পর পূর্ব আবদুল্যাহ পুর জামে মসজিদের সামনে পুনরায় উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে বাকবির্তক, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ৬ জন আহত হয়।

নির্বাচিত ইউপি সদস্য (মেম্বার) নুরুল হুদা আলমগীর জানান, নামাজের পরপর ভোটের বিষয় নিয়ে মসজিদের সামনে তার লোকদের ওপর হামলা চালায় মানিকের লোকজন। এ সময় তারা আজাদ নামের তার এক সমর্থককে আটক করে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। পরে হামলাকারীরা আলমগীর মেম্বারের বাড়িতে হামলা চালানোর চেষ্টা করে। এ সময় তাদের বাধা দিতে আসলে মেম্বারের ভাই জামাল উদ্দিন, নিজাম উদ্দিন, ভাতিজা রাব্বীকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে।

আরও পড়ুন: গাজীপুরে যুবককে গলা কেটে হত্যা

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনে পরাজিত হয়ে এবং আমাকে ফাঁসানোর জন্য মানিক নিজের দোকানে আগুন দিয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার সঙ্গে আমি বা আমার কোনো লোকজন জড়িত না বলে দাবি করেন তিনি।

এদিকে পরাজিত প্রার্থী নূর মোহাম্মদ মানিক বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় পরিকল্পিতভাবে আলমগীর মেম্বারের লোকজন আমার দোকানে আগুন দিয়েছে। এতে দোকানে থাকা মালামাল পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। নির্বাচনের আগে নতুন করে ওই দোকানে ৩ লাখ টাকার মালামাল তুলেছিলেন বলেও জানান তিনি।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি জানান, হামলা, সংঘর্ষ ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *