দীপাবলিতে আলোর উৎসব | আন্তর্জাতিক

দীপাবলিতে আলোর উৎসব | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ভারতজুড়ে উদযাপিত হলো সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব দীপাবলি।

অশুভ শক্তি বিনাশের লক্ষ্যে বিভিন্ন রাজ্যে আলোর উৎসবে মেতে ওঠেন ভারতীয়রা। অন্যদিকে দীপাবলির পাশাপাশি নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে এদিন শ্যামাপূজা উদযাপন করেন পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিরা।

যেদিকেই চোখ যায়, আলোর ছটা। জগতের সব অন্ধকার আর অশুভ শক্তি বিনাশের লক্ষ্যে নানা রঙের আলোয় উদ্ভাসিত গোটা ভারত।

করোনা আতঙ্ক উপেক্ষা করেই ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে দীপাবলি উৎসবে মেতে ওঠেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। পাশাপাশি দিনটি উদযাপন করে থাকেন শিখ এবং জৈন ধর্মাবলম্বীরাও।

দীপাবলি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের অমৃতসর পরিণত হয় উৎসবের নগরীতে। হাজারো প্রদীপ আর রঙিন আলোয় উদ্ভাসিত হয় গোটা শহর। সেইসঙ্গে আতশবাজি আর পটকা ফুটিয়েও দীপাবলি উৎসবে মেতে উঠতে দেখা যায় স্থানীয়দের।

স্থানীয় এক নাগরিক বলেন, এটা সত্যিই অসাধারণ। চোখের সামনে একসঙ্গে এত আতশবাজির দৃশ্য কেবল এই দিনটিতেই দেখা যায়।

দীপাবলি উদযাপন করা হয় ভারতের আসাম রাজ্যের বিভিন্ন শহরেও। করোনার ধাক্কা কাটিয়ে দীর্ঘদিন পর উৎসবে মাতেন রাজ্যের গুয়াহাটির বাসিন্দারা। মোমবাতি আর প্রদীপ জ্বালিয়ে ঘরের আঙিনা রাঙাতেও দেখা যায় অনেককে।

আসামের এক বাসিন্দা বলেন,  গেল দুই বছর করোনা মহামারির কারণে আমরা সেভাবে দীপাবলি উৎসব উদযাপন করতে পারেনি। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার অনেকদিন পার আমরা আবারও উৎসবটি উদযাপন করতে পেরেছি।

আরও পড়ুন: দীপাবলির আতশবাজিতে ভয়াবহ বায়ু দূষণ

নানা আয়োজনে দীপাবলি উৎসব উদযাপন করা হয় আরেক রাজ্য রাজস্থানেও। এদিন রাজ্যটির জয়সালমির শহর ভাসে আলোর বন্যায়। হাজারো প্রদীপ, মোমবাতি আর আতশবাজি পুড়িয়ে দিনটি উদযাপন করেন শহরটির বাসিন্দারা। শহরটির অলিতেগলিতে পটকা ফুটিয়ে উৎসবে মেতে ওঠেন নানা বয়সীরা।

এছাড়াও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান এই উৎসবটি উদযাপন করা হয় আরেক রাজ্য গুজরাটেও। রাজ্যের সবচেয়ে বড় শহর আহমেদাবাদ এদিন পরিণত হয় উৎসবের নগরীতে। সারি সারি প্রদীপ আর মোমবাতির আলোয় আলোকিত হয় গোটা শহর।

এদিকে, পশ্চিমবঙ্গজুড়ে দীপাবলি উৎসবের পাশাপাশি জেলা জেলায় শ্যামাপূজা বা কালীপূজা উদযাপন করা হয়। আতশবাজি আর প্রদীপের আলোয় সেজে ওঠে গোটা কলকাতা শহর। সেইসঙ্গে রঙ-বেরঙের আলোয় সাজানো হয় বিভিন্ন ভবন ও স্থাপনা।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *