তাসকিনের শিকার কিউই অধিনায়ক | খেলা

তাসকিনের শিকার কিউই অধিনায়ক | খেলা

<![CDATA[

বে ওভালে কিউইদের দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম উইকেটে পতন ঘটালেন টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদ। কিউই অধিনায়ক টম লেথামকে বোল্ড করেন বাংলাদেশের এই ফাস্ট বোলার। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কিউইদের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৩০ রান। বাংলাদেশ থেকে পিছিয়ে এখনও ১০০ রান।

এদিকে, দিনের শুরুতে দুইবার এলবিডাব্লিউতে মেহেদী মিরাজকে আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার। তবে রিভিউ নেয়ার কারণে মাঠ ছাড়তে হয়নি মিরাজকে। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। টিম সাউদির বাইরের একটি বলে খোঁচা মেরে কিপার টম ব্লানডেলের হাতে ক্যাচ তুলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মেহেদি। এর পরে একে একে ইয়াসির আলী,তাসকিন এবং শরিফুলের উইকেট হারায় বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত ৪৫৮ রানে থামে টাইগারদের ইনিংস। 

এদিকে, কিউইদের বিপক্ষে তৃতীয় দিনটা ভালোই কাটছিল বাংলাদেশের। তবে শেষ সেশনে বোল্টের বোলিংতাণ্ডবে দুই সেট ব্যাটসম্যান মুমিনুল এবং লিটনকে হারিয়ে খেই হারিয়ে ফেলে টাইগাররা।

বে ওভালে তৃতীয় দিনের শুরুর সেশনে মাহমুদুল হাসান এবং সাদমানকে হারালেও লিটন দাস এবং মুমিনুল হকের মন্থর ব্যাটিংয়ে ভালোই এগোতে থাকে বাংলাদেশ। তবে শতকের মাত্র ১২ রান আগে বোল্টের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মুমিনুল। এর ২৯ বল পর আরেক সেট ব্যাটার লিটন দাস ফেরেন ৮৬ করে। তবুও দিন শেষে এগিয়ে রাখা যাবে বাংলাদেশকে। কারণ পিচটা তো নিউজিল্যান্ডের। আর কিউই বোলারদের দাঁতভাঙ্গা জবাবও দিয়েছে টাইগার ব্যাটাররা।

এর আগে তৃতীয় দিনের শুরুতেই তরুণ ব্যাটার মাহমুদুল হাসান ব্যক্তিগত ৭৮ রানের মাথায় সাজঘরে ফেরার পর অধিনায়ক মুমিনুল হকের সঙ্গে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন মুশি। শুরুটা ভালোও করেছিলেন। তবে ট্রেন্ট বোল্টের বলে বোল্ড হয়ে মাত্র ১২ রান করে ফিরেছেন মুশফিক।
এরপর আগের দুই উইকেট পাওয়া সেই নিল ওয়াগনার আবারও উইকেট পান। যেন বাংলাদেশের আশার পালে বিষদাঁত ফুটিয়ে দেন বাঁহাতি এই ফাস্ট বোলার। সাদমান ও শান্তর পর তার শিকার লাল-সবুজের আরেক ভরসার নাম মাহমুদুল হাসান জয়। ২২৮ বলে অনবদ্য ৭৮ রান করে হ্যানরি নিকোলসের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই তরুণ তুর্কি।

আরও পড়ুন: ১৩০ রানের লিড নিয়ে থামল বাংলাদেশ 

আগের দিন ৭০ রানে অপরাজিত থাকার পর তৃতীয় দিনে কেবল ৮ রান করেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন জয়। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে নেমেই অর্ধশতক হাঁকানোর পর প্রথম ও আরাধ্য সেই শতকের দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিলেন এই তরুণ টাইগার ব্যাটার। তবে ওয়াগনার সেটা হতে দেননি। তার বাউন্সারে শেষ পর্যন্ত জয়ের ইনিংসের ইতি ঘটে।

এর আগে প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিন শেষেও স্বস্তিতে ছিল টিম টাইগার্স। রোববার (২ জানুয়ারি) কিউইদের ৩২৮ রানে আটকে দেওয়ার পর ব্যাট হাতেও ভালো করে সফরকারীরা। ২ উইকেট হারিয়ে ১৭৫ রান করে দ্বিতীয় দিন শেষ করেছিল বাংলাদেশ। মাহমুদুল হাসান জয় ৭০ ও অধিনায়ক মুমিনুল হক ৮ রানে অপরাজিত ছিলেন। 

 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *