তাইওয়ান উত্তেজনার মধ্যে বৈঠকে শি-জিনপিং | আন্তর্জাতিক

তাইওয়ান উত্তেজনার মধ্যে বৈঠকে শি-জিনপিং | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

অতি প্রত্যাশিত ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে যুক্ত হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার চীনা সমকক্ষ শি জিনপিং।

দুই বৈশ্বিক পরাশক্তির মধ্যে উত্তেজনা লাঘবে শুরু হওয়া বৈঠকে মানবাধিকার ও নিরাপত্তা ইস্যুতে অকপট আলোচনা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় সোমবার(১৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় দুনেতা এ ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে যোগ দেন। আলোচনার শুরুতে বাইডেন বলেন, এর আগে আমরা বহু চমৎকার আলোচনা করেছি। আশা করছি, কোনো রাখঢাক না-রেখেই আজকে আমরা কথা বলতে পারব।

জানুয়ারিতে জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর এই প্রথম দুই নেতা বড় ধরনের আলোচনায় যুক্ত হয়েছেন। ভিডিও কনফারেন্সে শি জিনপিংকে বাইডেন বলেন, সম্ভবত আমার আরও আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করা উচিত, যদিও আপনি ও আমি পরস্পরের সঙ্গে কখনোয়ই আনুষ্ঠানিক ছিলাম না।

যদিও সরাসরি মুখোমুখি বসার চেয়ে ভার্চ্যুয়াল বৈঠক কখনোয়ই ভালো না, তবুও ‘পুরনো বন্ধু’ বাইডেনকে দেখে খুশি হওয়ার কথা জানিয়েছেন শি জিনপিং। তিনি বলেন, চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় দুপক্ষের অবশ্যই যোগাযোগ ও সহযোগিতা বাড়াতে হবে।

বাইডেন বলেন, নিজেদের সম্পর্ক যাতে কোনোভাবেই প্রকাশ্য সংঘাতে মোড় না নেয়—দুনেতাকে অবশ্যই তা নিশ্চিত করতে হবে। সাধারণ বুদ্ধিকে নিরাপত্তা রেলিংয়ের ভূমিকায় রাখতে হবে।

ওয়াশিংটনে জন্য উদ্বেগজনক বিষয় নিয়ে কথা বলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন বাইডেন। বিশেষ করে ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে মানবাধিকার ও অন্যান্য ইস্যু নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের যে উদ্বেগ রয়েছে, তা তুলে ধরার কথা জানান তিনি।

আরও পড়ুন: বৈঠকে বসছেন বাইডেন-জিনপিং

দুদেশের প্রত্যেকের উচিত পরস্পরকে সম্মান দেখানো বলে মন্তব্য করেন শি জিনপিং। তার মতে, এ ক্ষেত্রে সম্পর্ককে স্থিতিশীল রাখতে হবে।

যদিও তাইওয়ান ও অন্যান্য উত্তেজনাপ্রবণ অঞ্চল নিয়ে চীন-মার্কিন সম্পর্কে টানাপোড়েন রয়েছে। চীনা প্রেসিডেন্ট বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন, করোনাভাইরাসের মতো বৈশ্বিক সংকট মোকাবিলায় দুদেশের সুসম্পর্ক প্রয়োজন।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস বলছে, যুক্তরাষ্ট্র ও পিআরসির মধ্যকার প্রতিযোগিতা দায়িত্বশীলতার সঙ্গে সামাল দিতে দুইনেতা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন। এছাড়া পারস্পরিক স্বার্থের জায়গাগুলো নিয়েও তারা কথা বলবেন।

বাইডেনের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর তাদের মধ্যে এটি তৃতীয় আলোচনা। এ বৈঠক কয়েক ঘণ্টা স্থায়ী হওয়ার কথা রয়েছে। মহামারি শুরু হওয়ার পর গেল দুবছর ধরে চীন থেকে বের হন না শি জিনপিং।
 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *