খুলনায় একযোগে বিএনপির ৫৬১ নেতাকর্মীর পদত্যাগ | বাংলাদেশ

খুলনায় একযোগে বিএনপির ৫৬১ নেতাকর্মীর পদত্যাগ | বাংলাদেশ

<![CDATA[

বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ থেকে নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে অব্যাহতি দেওয়ার প্রতিবাদে পদত্যাগের হিড়িক পড়েছে খুলনায়। খুলনা সদর ও সোনাডাঙ্গা থানার ১৬টি ওয়ার্ড ও অঙ্গ সংগঠনের ৫৬১ নেতাকর্মী একযোগে পদত্যাগ করেছেন।

রোববার (২৬ ডিসেম্বর) রাতে সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপি নেতা আরিফুজ্জামান অপু ও আসাদুজ্জামান মুরাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছন।

সদর থানা বিএনপির সদ্য বিলুপ্ত সাধারণ সম্পাদক আরিফুজ্জামান অপু বলেন, তৃণমূল এবং আমাদের পদত্যাগের তিনটি কারণ রয়েছে। যার প্রথমটি হচ্ছে, খুলনা মহানগর বিএনপির যারা নেতৃত্ব দেন, তাদের কেউ বর্তমান কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত হননি। দ্বিতীয়ত, নজরুল ইসলাম মঞ্জু দলের জন্য সারাজীবন যে ত্যাগ এবং শ্রম দিয়ে আসছেন, তাকে মহানগর থেকে বিদায় দিলে সম্মানজনকভাবে দেওয়া উচিত ছিল। তৃতীয়ত, নজরুল ইসলাম মঞ্জুতো এই কমিটি প্রত্যাখ্যান করেননি, পুনঃবিবেচনার দাবি জানিয়েছিল। তারপরও একটা মহল ভুল বুঝিয়ে তাকে ওই পদ (সাংগঠনিক সম্পাদক-খুলনা বিভাগ) থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে সমাধান হলে আমরা আগের মতোই রাজনীতিতে ফিরে আসব।

সদর থানা বিএনপির সদ্য বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ বলেন, এখন পর্যন্ত সোনাডাঙ্গা থানা ও সদর থানার ৫৬১ জন নেতাকর্মী পদত্যাগ করেছেন। এখনো পদত্যাগের জন্য নেতাকর্মীরা আসছেন। নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে অব্যাহতি দেওয়া তারা মেনে নিতে পারছেন না।

 

আরও পড়ুন: জয়পুরহাটে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা

 

পদত্যাগকারী নেতাদের মধ্যে অন্যতমরা হলেন- মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির উপদেষ্টা ইস্তিয়াক উদ্দিন লাভলু, জাসাস আহবায়ক মেহেদী হাসান দিপু, মহানগর বিএনপির দপ্তর সম্পাদক মহিবুজ্জামান কচি, শিল্প বিষয়ক সম্পাদক সাবেক কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন বনি, সদর থানা বিএনপির যোগাযোগ সম্পাদক সেলিম বড় মিয়া, সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকবাল হোসেন খোকন, এস এম শাহজাহান, সাদিকুর রহমান সবুজ, শেখ শওকত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ, ১৬নং ওয়ার্ডের সভাপতি শেখ জামিরুল ইসলাম জামিল, সাধারণ সম্পাদক শেখ মোস্তফা কামাল, ১৭নং ওয়ার্ডের সভাপতি শেখ ফারুক হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সোহাগ, আব্দুল হাকিম, ১৮নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুল আলিম, ১৯নং ওয়ার্ডের সভাপতি এস আকরাম হোসেন খোকন, সাধারণ সম্পাদক সরদার রবিউল ইসলাম রবি, ২০নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন টারজান, ২৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবু, সাধারণ সম্পাদক আনিচুর রহমান আরজু, ২৬নং ওয়ার্ডের সিনিয়র সভাপতি শেখ মনিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ বদরুল আলম বাচ্চু, হেদায়েত হোসেন হেদু, কাজী নজরুল ইসলাম, মীর মোসলেহ উদ্দিন বাবর, সাংগঠনিক সম্পাদক ওহেদুজ্জামান অহিদ, লিটু পাটোয়ারী, তুষার আলম, শেখ মারিফ, মোস্তফা জামাল মিন্টু, মো. হুমায়ুন কবিরসহ ২৫০ নেতাকর্মী।

 

এছাড়া খুলনা সদর থানা বিএনপির সভাপতি আব্দুল জলিল খান কালাম, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সাংগঠনিক সম্পাদক ইউসুফ হারুন মজনু, ২১নং ওয়ার্ডের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ কামাল উদ্দিন, ২৪নং ওয়ার্ডের সভাপতি কাউন্সিলর শমসের আলী মিন্টু, সহ-সভাপতি ওমর ফারুক ও ডা. আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির, ২৭নং ওয়ার্ডের সভাপতি হাসান মেহেদী রিজভী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জব্বার, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকারিয়া লিটন, ২৮নং ওয়ার্ডের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইশহাক তালুকদার, সহ-সভাপতি মাসুদ খান বাদল, যুগ্ম-সম্পাদক শাহীন গাজী, ২৯নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন মিজু, সিনিয়র সহ-সভাপতি খান শহিদুল ইসলাম, সহ-সভাপতি মোহাম্মদ আলী মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন, ৩০নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম খোকন, সহ-সভাপতি গাজী শাহাদাৎ হোসেন, যুগ্ম-সম্পাদক মতিয়ার রহমান বুলেটসহ ৩১১ নেতাকর্মী পদত্যাগ করেছেন।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *