কক্সবাজারে দ্বিতীয়বারের মতো ‘মেরিন ড্রাইভ আলট্রা-ম্যারাথন’ | বাংলাদেশ

কক্সবাজারে দ্বিতীয়বারের মতো ‘মেরিন ড্রাইভ আলট্রা-ম্যারাথন’ | বাংলাদেশ

<![CDATA[

কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভে দ্বিতীয়বারের মতো শুরু হচ্ছে মেরিন ড্রাইভ আল্ট্রা-ম্যারাথন। ‘দেশ আমার, দায়িত্ব আমার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজন করেছে ট্রাভেলার্স অব বাংলাদেশ (টিওবি)। মিডিয়া পার্টনার হিসেবে রয়েছে ‘সময় টেলিভিশন’।

ইনানী থেকে টেকনাফ পর্যন্ত তিনটি ক্যাটাগরি ৫০, ১০০ ও ১৬১ কিলোমিটার দূরত্বের এই আলট্রা ম্যারাথনের সময়সীমা ১০, ২৪ ও ৩৬ ঘণ্টা।

আয়োজকরা জানান, বৈচিত্র্যের প্রতি ইতিবাচক মানসিকতার প্রসার ঘটাতে এবং সমাজের বিভিন্ন বৈচিত্র্যের মানুষের অংশগ্রহণ উৎসাহিত করতে এ আলট্রা ম্যারাথনে সাধারণ অ্যাথলেটদের পাশাপাশি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ, দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী, হুইলচেয়ার আরোহী ও অটিস্টিক অ্যাথলেটরাও অংশ নেবেন। সম্ভাব্য অংশগ্রহণকারী দৌড়বিদের সংখ্যা ৩০০।

জানা যায়, টিওবি শুরু থেকে সব সময়ই বিভিন্নরকম আউটডুর অ্যাক্টিভিটি আয়োজন, অংশগ্রহণ, সহযোগিতা প্রদান এবং প্রচলনের ব্যাপারে সচেষ্ট রয়েছে। বিগত এক যুগেরও অধিক সময় ধরে বাংলাদেশে অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজম, নানা রকম ক্রীড়া ও অ্যাডভেঞ্চার কর্মকাণ্ড এবং পরিবেশ সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড প্রসারে কাজ করে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: শাহ আলমের ভাগ্যেও জানাজা মিলেনি, পুলিশ প্রহরায় দাফন

গত বছরের ১৭ জানুয়ারি ‘ভ্রমণ হোক দায়িত্বশীল ও পরিবেশবান্ধব’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে প্রথমবারের মতো কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভে একটি অলাভজনক আল্ট্রা-ম্যারাথন আয়োজন সফলভাবে সম্পন্ন হয়। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছর মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে শুক্রবার (০৩ ডিসেম্বর) ‘দেশ আমার, দায়িত্ব আমার’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে কক্সবাজারে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকতের পাশ দিয়ে বিস্তৃত মেরিন ড্রাইভ-এ ‘মেরিন ড্রাইভ আলট্রা ২০২১’ শিরোনামে দ্বিতীয়বারের মতো আল্ট্রা ম্যারাথনের আয়োজন।

এদিকে এবারও ১০০ কিলোমিটার দৌড়ে অংশ নিচ্ছেন সহিদুল ইসলাম নামের একজন ম্যারাথন দৌড়বিদ। সহিদুল বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের উপপরিচালক। প্রথম মেরিন ড্রাইভ আল্ট্রা ম্যারাথনে তিনি সফলভাবে ৫০ কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড় সম্পন্ন করেছিলেন।

তিনি বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি অ্যাথলেটক্সের চর্চা আমার ফ্যাশন। আমি মনে করি সব পেশাজীবীদেরই শরীরচর্চা করা প্রয়োজন। এতে করে সুস্থতার পাশাপাশি কর্মদক্ষতাও বাড়ে।
 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *