এই ৫ ধনীর কাছে ‘দুধের শিশু’ বেজোস | আন্তর্জাতিক

এই ৫ ধনীর কাছে ‘দুধের শিশু’ বেজোস | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি কে? এক বাক্যে হয়তো সবাই উত্তর দেবে আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোসের কথা। উত্তরটাও একেবারে সঠিক। তবে বিশ্বে আরও পাঁচজন ধনকুবের ছিলেন, যাদের সম্পত্তির হিসাব করলে বেজোসকে নেহাতই ‘দুধের শিশু’ বলে মনে হবে সবার।

মার্কিন প্রভাবশালী ম্যগাজিন ফোর্বস জানিয়েছে, চলতি বছরে বেজোসের মোট সম্পতির পরিমাণ ১৭ হাজার ৭০০ কোটি ডলার। মূলত মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এবং বার্কশায়ার হ্যাথওয়ের ধনকুবের চেয়ারম্যান ওয়ারেন বাফেকেও ছাপিয়ে গেছে বেজোসের মোট সম্পদের পরিমাণ।

তবে মানসা মুসা জীবিত থাকলে বেজোসের সম্পদের কথা শুনে হয়তো হেসেই ফেলতেন। মুসার ব্যক্তিগত সম্পদের পরিমাণ ছিল ৪৫ হাজার কোটি ডলার। তবে বহু আর্থিক বিশেষজ্ঞের মতে, তার সম্পত্তির ঠিকঠাক হিসাব করা সম্ভব হয়নি। অর্থাৎ ৪৫ হাজার কোটি ডলারের থেকে বেশি সম্পদের অধিকারী ছিলেন মুসা।

পনেরোশো শতকে জেকব ফাগার নামে জার্মানির এক ব্যবসায়ীর সম্পত্তিও বেজোসের থেকে বেশি ছিল। ব্যবসার পাশাপাশি ব্যাংকার হিসাবেও নাম কুড়িয়েছিলেন ফাগার। ফাগারের কাছে খনির মালিকানাও ছিল। আজকের অর্থব্যবস্থার নিরিখে তার সম্পত্তির মোট পরিমাণ ৪০ হাজার কোটি ডলার।

আরও পড়ুন: আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’

আমেরিকার ব্যবসায়ী জন ডি রকেফেলারকে সে দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে ধনী বলে মনে করেন অনেকে। আবার আধুনিক বিশ্বের ধনীতমদের তালিকায়ও তার নাম শীর্ষ স্থানে বলেও দাবি। ১৯৩৭ সালে ৯৭ বছর বয়সে তার মৃত্যু আগে রকেফেলারের কাছে মোট সম্পত্তির আর্থিক মূল্য আজকের নিরিখে ৩৫ হাজার কোটি ডলার। এক সময় আমেরিকার অপরিশোধিত তেল এবং তৈলজাত দ্রব্যের ৯০ শতাংশই ছিল তাঁর দখলে

আমেরিকার ইস্পাত শিল্পে কার্যত বিপ্লব এনেছিলেন অ্যান্ড্রিউ কার্নেগির ব্যবসায়িক বুদ্ধি। ১৯ শতকে স্কটিশ-আমেরিকান কার্নেগির ব্যবসায়িক সাম্রাজ্য পশ্চিম গোলার্ধের অর্থনীতির ছবিটাই বদলে দিয়েছিল।

১৯ শতকে আমেরিকার গাড়ি বা আবাসন শিল্প সব কিছুতেই কার্নেগির সংস্থার ইস্পাতের জোগান ছিল। আজকের নিরিখে কার্নেগির মোট সম্পদের পরিমাণ ৩১ হাজার কোটি ডলার।

বিশ্বের ধনকুবেরদের তালিকায় মির ওসমান আলি খানের নামও রয়েছে। ব্রিটিশ শাসনাধীন কালে হায়দরাবাদের শেষ নিজাম ছিলেন তিনি। ১৯৩৭ সালে বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির শিরোপা পেয়েছিলেন মির ওসমান। এক সময় তার মোট সম্পত্তি ছিল ২১ হাজার কোটি ডলারের।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *