উচ্চশিক্ষা কাজে আসছে না, নতুন দক্ষতা অর্জনের তাগিদ | বাণিজ্য

উচ্চশিক্ষা কাজে আসছে না, নতুন দক্ষতা অর্জনের তাগিদ | বাণিজ্য

<![CDATA[

বাংদেশের সব তরুণদের মাঝে উচ্চশিক্ষার দিকে ঝুঁকে পড়ার যে প্রবণতা, তা দিনশেষে জীবিকা নির্বাহের কাজে আসছে না বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম.এ. মান্নান। এজন্য বিকল্প শিক্ষার দিকে গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, ‘সকল কর্মক্ষেত্রে কাজের শোভন পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। তাহলেই বাংলাদশের যুবসমাজের বিভিন্ন সমস্যাগুলো প্রশমিত হবে।’

তিনি তরুণদের ক্রমপরিবর্তনশীল এই বিশ্বে দ্রুত নিজেদের নতুন দক্ষতার সাথে পরিচিত হতে উপদেশ দেন। দেশের যুবসমাজকে নিয়ে তার আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, যেকোনো প্রয়োজনে বাংলাদেশ সরকার তারুণ্যের পাশে থাকবে।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) ‘সেক্টরাল অ্যাকশন প্ল্যান ফর ইয়ুথ বাজেটিং’ শীর্ষক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ওয়েবিনারটিতে সভাপতিত্ব করেন একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির। আর ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং সানেমের গবেষণা পরিচালক ড সায়মা হক বিদিশা।

অনুষ্ঠানের সূচনা বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং সানেমের নির্বাহী পরিচালক ড সেলিম রায়হান, বাংলাদেশের অর্থনীতিতে তরুণদের গুরুত্ব তুলে ধরে বর্তমানে বিদ্যমান জনমিতি লভ্যাংশের উপযুক্ত ব্যবহারের উপর জোর দিতে আহ্বান জানান।

বলেন, ‘শুধুমাত্র সরকারেরই নয়, তরুণদের অভিভাবকদেরও সক্রিয়ভাবে সন্তানদের শিক্ষা এবং দক্ষতা অর্জনে সহায়তা করতে হবে।’

অনুষ্ঠানের সভাপতি ফারাহ কবির তার বক্তব্যে বর্তমান সময়ে কোভিড প্রেক্ষাপটে তরুণদের সমস্যাগুলো উল্লেখ করেন। তিনি শিক্ষা ও কর্মসংস্থান সংক্রান্ত ক্ষেত্রগুলোয় সরকারি সংস্থাসমুহের সমন্বয়ের উপর গুরুত্ব দেন।

পরে, সানেমের গবেষক ইশরাত শারমীন তার ‘সেক্টরাল অ্যাকশন প্ল্যান ফর ইয়ুথ বাজেটিং’ শীর্ষক গবেষনাপত্রে শিক্ষা, কর্মসংস্থান, আয়, স্বাস্থ্যসেবা, দারিদ্র্য ও পারিবারিক সহিংসতা- এই ছয়টি সূচকের আওতায় তরুণ প্রজন্মের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ ও চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার উপায়গুলো আলোচনা করেন। দেশের তরুণ জনগোষ্ঠীর সমস্যা লাঘবে প্রস্তাবনাগুলো ফলপ্রসূ হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন। এই গবেষণায় জীবিকা এবং স্বাস্থ্যখাতকে তরুণদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

আরও পড়ুন: ‘বঙ্গবন্ধুর নামে প্রবর্তিত পুরস্কার শিল্প বিকাশে সহায়ক’

কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. বোরহানুল হক বলেন, কারিগরি শিক্ষার প্রসারের মাধ্যমে তরুণদের মাঝে দ্রুত কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা সম্ভব। পাশাপাশি মাদরাসা শিক্ষা কার্যক্রমের মাঝে কারিগরি শিক্ষাকে অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে, যা দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে কর্মমুখী দক্ষতা ছড়িয়ে দেবে বলেও মনে করেন তিনি।

ওয়েবিনারে বক্তা হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ইয়াসমিন আখতার, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব ড. জহিরুল ইসলাম, একশনএইড বাংলাদেশের ম্যানেজার (ইয়াং পিপল), নাজমুল আহসান, এবং ব্র্যাক স্কিল ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের অপারেশনস ম্যানেজার, দেবাংশু কুমার ঘোষ।

অনুষ্ঠানের বক্তারা বিভিন্ন দিক থেকে বর্তমান তরুণ প্রজন্মের প্রধান সমস্যাগুলো এবং তা মোকাবেলার উপায় আলোচনা করেন। করোনা মহামারি কিভাবে যুব সমাজের কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে বড় একটি বাঁধা হয়ে এসেছে তা তুলে ধরেন। তাদের আলোচনা থেকে উঠে আসে শিক্ষাব্যবস্থা এবং কর্মক্ষেত্রের সমন্ময়ের অভাবে বেকারত্ব কিভাবে বৃদ্ধি হচ্ছে। 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *