অ্যাশেজ শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণে মাঠে নামছে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া | খেলা

অ্যাশেজ শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণে মাঠে নামছে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়া | খেলা

<![CDATA[

অবশেষে শুরু হতে যাচ্ছে মাঠের খেলা। দীর্ঘ সময় বৃষ্টি এবং বৈরি আবহাওয়ার কারণে অনুশীলনের ঘাটতি থাকলেও মূল মঞ্চে নামতে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড। নতুন অধিনায়কের অধীনে ভালো শুরুর অপেক্ষায় অজিরা। বাইরের সমস্ত সমালোচনাকে দূরে সরিয়ে মাঠে নামতে মুখিয়ে ওয়ার্নার-স্মিথরা। অন্যদিকে অ্যান্ডারসন-ব্রড ছাড়াই ক্যাঙারুদের সামলাতে প্রস্তুতি নিয়েছে ইংল্যান্ড। বেন স্টোকসের ফিরে আসার ম্যাচে দারুণ কিছু করে দেখাতে চান জো রুট বাহিনী। ব্রিসবেনে বুধবার (৮ ডিসেম্বর) ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ভোর ৬টায়।

সিরিজ শুরুর আগে আলাদা আলাদা কারণে অস্থিরতা চলছিলো দুই ক্রিকেট বোর্ডেই। টিম পেইনের মেসেজ কেলেঙ্কারিতে টালমাটাল হয়ে পড়েছিলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। তবে দ্রুতই সে সমস্যা সমাধান করে ছেলেদের ক্রিকেট মাঠে ফেরাতে সমর্থ হয়েছে সিএ। ইতিহাস গড়ে একজন পেস বোলারের হাতে পরানো হয়েছে ব্যাগি গ্রিনদের আর্মব্যান্ড। অন্যদিকে বিশ্বকাপ থেকে এসে পর্যাপ্ত অনুশীলন করতে পারেনি ইংলিশরা। বৈরি আবহাওয়ায় ঘরবন্দী থাকতে হয়েছে ব্রড-বাটলারদের। শেষ পর্যন্ত মাঠে ফিরলেও বর্ণবাদ অস্থির করে তুলে ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে (ইসিবি)।
 

এবার সব সমালোচনা বাইরে রেখে ২২ গজে নামার জন্য প্রস্তুত দুই দল। ম্যাচের আগে একটু চিন্তায় অস্ট্রেলিয়া। একাদশটা তারা ঠিক করে ফেলেছে আরো কয়েকদিন আগেই। কিন্তু আবহাওয়া খারাপ থাকায় ঢাকাই রয়ে গেছে গ্যাবার উইকেট। তাই পিচের আচরণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় ক্যাঙারুরা।

 

নিজের প্রথম দায়িত্বে রেকর্ডগুলোকে পাশে পাচ্ছেন প্যাট কামিন্স। ১৯৮৭ সালের পর কখনোই এই মাঠে জেতেনি ইংল্যান্ড। নাথান লায়ন আর স্মিথের ফর্ম এবং পরিসংখ্যান আশার পালে হাওয়া দিচ্ছে নতুন কাপ্তানকে। এ টেস্টকে সামনে রেখে অজি অধিনায়ক কামিন্স বলেন, বৃষ্টির কারণে কিছুটা অনির্ধারিত ছুটি পেয়েছিলাম আমরা। বিশ্রামটা বেশ কাজে লেগেছে। সবাই ফুরফুরে মেজাজে আছে। অ্যাশেজ সবসময়ই আমাদের জন্য বিশেষ কিছু, তাই আলাদা মোটিভেশনের প্রয়োজন নেই। দলের জন্য স্মিথ এখনো গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। তার সঙ্গে আমার সম্পর্ক খুব ভালো। দুজন মিলে ভালো একটা সিরিজ উপহার দিতে পারবো। ইংলিশ দলে ব্রড-অ্যান্ডারসনের না থাকাটা আমাদের জন্য ভালো। তবে যারা আছে তারা ম্যাচ বের করে নেওয়ার জন্য যথেষ্ট।
 

আরও পড়ুন: গ্রুপ সেরা হয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে আবাহনী
 

ইনজুরি চিন্তায় ফেললেও নির্ভারই আছেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। কারণটা হয়তো বেন স্টোকসের ফিরে আসা। অভিজ্ঞ দুই পেসার একাদশে না থাকলে দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত ক্রিস ওকস, মার্ক উড এবং ওলি রবিনসনরা। আর বেন হাত ঘোরালে তো পোয়াবারো ইংল্যান্ডের জন্য। পরিসংখ্যান বিপাকে রেখেছে ইংল্যান্ডকে। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ১৭ ইনিংস ধরে সেঞ্চুরি নেই অধিনায়ক জো রুটের। ছয়বার ফিফটি পেরোলেও স্কোরকার্ডে শতকের দেখা পাচ্ছেন না রুট। আর গ্যাবা তো রীতিমতো দুর্গ অজিদের জন্য। ৩২ বছরে এক ভারত ছাড়া কেউই জয় করতে পারেনি এই গ্রাউন্ডকে।

 

ম্যাচের আগে ইংলিশ ক্রিকেটার জস বাটলার বলেন, স্টোকস আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। তার ফিরে আসাটা দুর্দান্ত সময়ে হয়েছে। টেস্ট শুরুর আগের দিন প্রস্তুতির ঘাটতি নিয়ে কথা বলে লাভ নেই। আমরা লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত। অ্যান্ডারসনকে না পাওয়াটা কিছুটা পিছিয়ে দিয়েছে। ব্রডকে নিয়ে এখনো নিশ্চিত না, তবে সে না থাকলেও আশা করি সমস্যা হবে না। যারা আছেন বা থাকবেন তারা যথেষ্ট যোগ্য।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *